26 March Independence Day SMS স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা, মেসেজ, স্টাটাস , বাণী ও বার্তা

Independence Day

26 March Independence Day SMS স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা, মেসেজ, স্টাটাস , বাণী ও বার্তা… Today is the 51st Independence Day of Bangladesh. This day is a national holiday for us. In 971, the people of Bangladesh fought in West Pakistan for the independence of the country. Therefore, March 26 is celebrated as Independence Day. Like every year, this year also Independence Day will be celebrated through various events.

Independence Day is celebrated with a variety of important events, including flag hoisting at schools, first-day events, special games, flag hoisting, special meals, and lectures on the importance and history of Independence Day Bangladesh.

স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা

  • বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস 26 শে মার্চ উপলক্ষে আজ আমরা এখানে কিছু শুভেচ্ছা বার্তা প্রদান করব যা বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলব্ধি এবং জানার জন্য যথেষ্ট।
  • আসুন এই স্বাধীনতা দিবস আমাদের মহান জাতির শান্তি রক্ষার শপথ নেই শুভ স্বাধীনতা দিবস
  • আমাদের অতীত স্মরণ করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কারণ অতীতে সংগ্রামের মধ্য দিয়ে দেশের স্বাধীনতা রক্ষার জন্য যুদ্ধ করতে হয়েছিল। শুভ স্বাধীনতা দিবস।
  • স্বাধীনতা দিবসকে উদযাপন করতে এবং ধরে রাখতে বছরের পর বছর আমরা পালন করে থাকি -স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা.
  • স্বাধীনতার সন্ধ্যা আগে কখনো হতে দিওনা, শহীদের আত্মত্যাগকে অসম্মান করা যাবেনা, যে পর্যন্ত এক ফোটা রক্ত থাকবে বাংলাদেশের সেই মায়ের নিলাম নিলাম হতে দেব না -স্বাধীনতা দিবস শুভেচ্ছা
  • পৃথিবীতে যথেষ্ট ঘৃণা এবং সহিংসতা হয়েছে যা স্বাধীনতার রং দেখে বুঝে নিতে হবে সুতরাং আমাদের একটি ভবিষ্যৎ দেশ গড়ার শপথ গ্রহণ করতে হবে -স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা
  • আজ আমরা আমাদের অর্জিত স্বাধীনতা পেয়েছি এজন্য স্বাধীনতা রক্ষার জন্য যথেষ্ট কাজ করতে হবে- স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা
  • এই গৌরবময় দিন টিকে যারা উপহার দিয়েছিল সেই ব্রিটিশ সেনা এবং মানুষদের আত্মত্যাগের কথা মনে রাখতে হবে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা
  • এই দেশকে রক্ষা করার জন্য যারা জীবন দিয়েছিল সেই বীর শহীদদের জানাই সালাম এবং স্মরণ করি চিরদিন এবং পালন করে স্বাধীনতা দিবসে শুভ স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা
  • সকলকে জানাই একটি সুখী এবং স্বাস্থ্যকর স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা

স্বাধীনতা দিবসের মেসেজ

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে কিছু গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ আমরা সংগ্রহ করেছি এবং ওই উপস্থাপন করেছি যাতে আপনি স্বাধীনতা দিবসের গুরুত্ব ইতিহাস ও মর্যাদা উপলব্ধি করে অপরকে জানাতে পারেন ম্যাসেজ-এর মাধ্যমে.

  • আমাদের সকলের প্রচেষ্টায় দেশের মান-সম্মান যেন আরও বাড়ে। কোনও সময় যেন ক্ষুন্ন না হয় আমাদের পতাকার অভিমান।
  • স্বাধীনতার থেকে মূল্যবান আর কিছু হয় না। তাই তো প্রতিটি মানুষেরই তাঁর স্বাধীনতা রক্ষার্থে লড়াই করা উচিত।
  • ধর্মের ভেদাভেদিতে দেশ ভাগ হতে দেখেছি আমরা। তাই ধর্মের নামে আর লড়াই নয়। বরং দেশের ঐক্য রক্ষার স্বার্থে চলো হাতে হাত মেলাই।
  • আমাদের দেশের জন্য আজকের দিনটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। চলো আমরাও সেই বৃহৎ উৎসবের শরিক হই।
  • বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে কিছু গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ আমরা সংগ্রহ করেছি এবং ওই উপস্থাপন করেছি যাতে আপনি স্বাধীনতা দিবসের গুরুত্ব ইতিহাস ও মর্যাদা উপলব্ধি করে অপরকে জানাতে পারেন ম্যাসেজ-এর মাধ্যমে
  • বাংলাদেশের 51 তম স্বাধীনতা দিবসে সবাইকে জানাই অনেক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন
  • এখানে তম স্বাধীনতা দিবসের আল্লাহর কাছে কামনা করি সেই সব শহীদদের যারা দেশের জন্য যুদ্ধ করে প্রাণ দিয়েছিল এবং যারা বেঁচে আছে তাদের জন্য.

স্বাধীনতা দিবসের কোটস (Independence Day Quotes)

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাস গুরুত্ব ও স্বাধীনতার সর্বাধিক বিবেচনা করে বিখ্যাত ব্যক্তিগন বাংলাদেশের স্বাধীনতা উপলক্ষে কিছু উত্তর প্রদান করেছেন যা চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবে মানুষের হৃদয়ে এবং এই উক্তিগুলো আমরা নিজে জানি অপরকে জানার সুযোগ করে দিন.

  • যাঁরা অন্যের স্বাধীনতা খর্ব করে, তাঁদেরও স্বাধীনভাবে বেঁচে থাকার কোনও অধিকার নেই – আব্রাহাম লিঙ্কন
  • স্বাধীনতা অর্জন করা সহজ কাজ নয়। কিন্তু একে ছাড়া বেঁচে থাকাও কঠিন। তাই যে কোনও মূল্যে স্বাধীনতা অর্জন করাই আমাদের প্রথম কর্তব্য হওয়া উচিত – মহাত্মা গান্ধী
  • যে নিজের স্বাধীনতার জন্য লড়াই করে, তাঁর দায়িত্ব হল অন্যের স্বাধীনতা যাতে কোনও ভাবে খর্ব না হয়, সেদিকেও নজর রাখা – টমাস পেন
  • স্বাধীনতা হল গুরুদায়িত্ব। তাই তো অনেকেই স্বাধীনতাকে ভয় পায় – জর্জ বার্নার্ড শ
  • স্বাধীনতা দীর্ঘজীবী হোক। মানুষের সবচেয়ে বড় এই কৃতিত্ব (Independence Day Quotes) কেউ যেন কখনও ভুলে না যায় – নেলসন ম্যান্ডেলা
  • স্বাধীনতা হল এমন একটা সুযোগ যা মানুষকে আরও উন্নত হতে সাহায্য করে – আলবার্ট ক্যামু
  • মানুষের জীবনে যদি শান্তি না থাকে, তা হলে স্বাধীনতাও থাকবে না।
  • স্বাধীনতা বংশ পরম্পরায় পাওয়া যায় না। এর জন্য লড়াই করতে হয়। বলিদান না দিলে স্বাধীনতা অর্জন করা সম্ভব নয় – রোনাল্ড রেগন
  • কেউ আমাদের সাহায্য করুন বা না করুন, আমরা আমাদের স্বাধীনতার জন্য যে কোনও মূল্য চোকাতে রাজি আছি। এমনকী, এই কারণে আমরা যেমন কাউকে সাহায্য করতে প্রস্থুত, তেমনই প্রয়োজনে বিরোধিতা করতেও পিছপা হব না – জন এফ কেনেডি
  • সারা জীবন জেলে বন্দি হয়ে থাকার থেকে স্বাধীনতার জন্য প্রাণ ত্যাগ করা অনেক মহৎ কাজ – বব মার্লে

স্বাধীনতা দিবস 26 শে মার্চ উপলক্ষে উক্তি বা বাণী

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস 26 শে মার্চ উপলক্ষে কিছু গুরুত্বপূর্ণ উক্তি বা বাণী কালেকশন করেছি যা আপনাদের জানা দরকার এবং আপনি এই স্বাধীনতার উক্তিগুলো অপরকে শেয়ার করে স্বাধীনতা দিবস কি এবং ইতিহাসকে জানার সুযোগ করে দিতে পারেন.

  1. স্বাধীনতা শক্তি এবং স্বনির্ভরতা থেকে আসে।— লিসা মারকোভস্কি
  2. শৃঙ্খলা ভঙ্গের মধ্যে একধরণের পৈশাচিক স্বাধীনতা আছে।— রবার্ট ফ্রস্ট
  3. স্বাধীনতা মানুষের মনের একটি খোলা জানালা, যেদিক দিয়ে মানুষের আত্বা ও মানবমর্জাদার আলো প্রবেশ।— হার্বার্ট হুভার
  4. নিজের ইচ্ছামত বাঁচা ছাড়া স্বাধীনতার অর্থ আর কিইবা হতে পারে।— অ্যাপিকটিটাস
  5. স্বাধীনতা ছাড়া একটি জীবন মানে আত্বা ছাড়া শরীর।—খলিল জিবরান
  6. স্বাধীনতা মানুষের প্রথম এবং মহান একটি অধিকার।— জন মিল্টনস্বাধীনতা নিয়ে উক্তি
  7. ৮. যুদ্ধই শান্তি, স্বাধীনতাই দাসত্ব, অজ্ঞতাই শক্তি।— জর্জ অরওয়েল
  8. ৯. ভুল করার স্বাধীনতা না থাকলে সেই স্বাধীনতার কোন মূল্য নাই।— মহাত্বা গান্ধী
  9. ১০. স্বাধীনতা সাহসী হওয়ার মধ্যেই নিহিত।— রবার্ট ফ্রস্ট
  10. ১১. স্বাধীনতা হল লোকেরা যা শুনতে চায় না তা বলার অধিকার।— জর্জ অরওয়েল
  11. ১২. স্বাধীনতার পক্ষে সবচেয়ে বড় হুমকি সমালোচনার অনুপস্থিতি।— ওলে সোইঙ্কা
  12. ১৩. স্বাধীনতা এমন একটি জিনিস যা ব্যবহার না করা হলে মারা যায়।— হান্টার এস থম্পসন
  13. ১৪. স্বাধীনতা উপভোগ করতে আমাদের নিজেদেরকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।— ভার্জিনিয়া উলফ
  14. ১৫. আমাদের মনে রাখতে হবে যে স্বাধীনতা বিনা মাসুলে প্রাপ্ত নয়।— সংগৃহীত
  15. ১৬. মানুষ জন্ম নেয় মুক্তভাবে, কিন্তু সবখানেই সে শৃঙ্খলাবদ্ধ।— জিন জ্যাকস রউজি

স্বাধীনতা দিবসের এসএমএস

স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে কিছু আপডেট ও গুরুত্বপূর্ণ এসএমএস রয়েছে যেগুলো স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং সবার কাছে জনপ্রিয়। আপনি যদি স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে এই এসএমএসগুলো আপনার প্রিয় জন বা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করতে চান তাহলে এখান থেকে এসএমএস গুলো সংগ্রহ করতে পারেন।

  • এক নদী রক্ত পেরিয়ে বাংলার স্বাধীনতা আনলে যারা আমরা তোমাদের ভুলবনা…” — বাংলার স্বাধীনতার জন্য যাদের রক্তের নদী বয়ে গিয়েছিল বাংলার বুকে সেই সকল শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনায়– স্বাধীনতা দিবস সফল হোক।
  • ”প্রথম বাংলাদেশ আমার শেষ বাংলাদেশ জীবন বাংলাদেশ আমার মরণ বাংলাদেশ…” আমাদের জীবন-মরণ এই বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে সবাইকে সুভেচ্ছা।
  • ”স্বাধীনাতা তুমি ……” মহান স্বাধীনতার জন্য যে সকল অকুতোভয় বীর সন্তানরা বিলিয়ে দিয়েছিলেন তাদের তাজা প্রাণ সে সকল শহীদদের স্মরণে….. সকলকে মহাণ স্বাধীনতা দিবসের অভিনন্দন।
  • ”একটি বাংলাদেশ তুমি… জনতার, সারা বিশ্বের বিস্ময় তুমি আমার অহংকার।”” সারা বিশ্বের বিস্ময় এই বাংলাদেশের জন্য আসুন আমরা সবাই মিলে কাজ করি। মহান স্বাধীনতা দিবসের এটাই হোক আমাদের শপথ।
  • সব ক’টা জানালা খুলে দাও নাআমি গাইবো, গাইবো বিজয়েরই গানওরা আসবে চুপি চুপিযারা এইদেশটাকে ভালোবেসে দিয়ে গেছে প্রান……
  • মুক্তির মন্দির সোপান তলেকত প্রাণ হলো বলিদান,লেখা আছে অশ্রুজলে..কত বিপ্লবী বন্ধুর রক্তে রাঙা,বন্দীশালার ওই শিকল ভাঙা,তাঁরা কী ফিরিবে এই সুপ্রভাতে-যত তরুণ অরুণ গেছে অস্তাচলে!”মহান বিজয় দিবস অমর হোক।”জয় বাংলা।
  • কিনেছি অনেক দামী উপহারবহু মনোহর কাগজের ফুল; ভালোবাসা দিয়ে হয়নাই কেনা একখানি মেঘ একটি বকুল!জমিজমা আর গৃহ আসবাবঅধিক মূল্যে করে রাখি ক্রয়, শুধু কিনি নাইকানা কড়ি দিয়ে একজোড়া চোখ একটি হৃদয়!__মহাদেব সাহা
  • ১ টি যুদ্ধ৯ টি মাস৭ জন বীরশ্রেষ্ঠ১ টি দেশমিনিং অফ ১৯৭১সবাইকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা ওঅভিনন্দন-
  • সূর্যোদয়ে তুমি সূর্যস্তেও তুমিও আমার বাংলাদেশ প্রিয় জন্মভূমিও আমার বাংলাদেশ প্রিয় জন্মভূমি!!আজ ১৬ ই ডিসেম্বর।মহান বিজয় দিবস।সবাইকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা……….১৯৭১ সালে যাদের মহান আত্নত্যাগেরবিনিময়ে আমরা পেয়েছি একটি স্বাধীনসার্বভৌম রাষ্ট্র, তাদের রুহের মাগফিরাতকামনা করছি।শ্রদ্ধার সাথে স্বরন করছি জাতিরশ্রেষ্ট সন্তানদের।
  • মুক্তির লাল সবুজ উল্লাসেপাজরের বন্ধনগুলো অন্য আলোয় উদ্ভাসিতন মাসের লালিত ক্ষোভের দাবানলেক্ষয় হয়ে যাকমনের সব নীচতা, মৌনতা, হীনতাসবাইকে বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা…
  • আজ ১৬ ডিসেম্বর। মহান বিজয় দিবস। ১৯৭১সালের এই দিনে ৩০ লক্ষ শহীদের তাজাপ্রাণএবং দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধেরবিনিময়ে আমরা পেয়েছি আমাদের প্রাণতুল্যমাতৃভূমি, বাংলাদেশ।
  • লাল এর মাঝে ভালবাসা; সাদা এর মাঝে বন্ধুত্ব; নীল এর মাঝে কষ্ট; কালো এর মাঝে অন্ধকার; আর.. সবুজের মাঝে আমার বাংলাদেশ।
  • বিজয় আমাকে পথ দেখিয়েছে ,দিয়েছে বাচার আশ্বাস ।আমি বিজয়ের গান গাই ,আমি স্বাধীনতা কে চাই ।আমি বিজয়ের পতাকা ধরে ,সারাটি পথ পাড়ি দিতে চাই ।মহানবিজয় দিবসের শুভেচ্ছা ।
  • তোমার মাঝেই স্বপ্নের শুরু,তোমার মাঝেই শেষ ৷তবু ভালো লাগা ভালোবাসাময় তুমি,আমার বাংলাদেশ ৷
  • মুক্ত পাখি মুক্ত আকাশমুক্ত আমি তুমিরক্ত দিয়ে কিনে নিলামপ্রিয় জন্নভূমি।মুক্ত মাটি মুক্ত পানিমুক্ত সোনার দেশমুক্তিসেনার রক্ত তোহবে না যে শেষ।যাদের রক্তে মুক্ত স্বদেশবিজয় এলো ঘরেবিজয় দিনে আমরা তাদেরভুলব কেমন করে।
  • ( ১৬ ই ডিসেম্বরতুমি বাঙালির অহংকারতুমি কোটি জনতার,বিজয় নিশানস্বাধীন বাংলার স্বাক্ষর ।

স্বাধীনতা দিবসের কবিতা

স্বাধীনতা দিবসের অনেক গুরুত্বপূর্ণ এবং তাৎপর্যপূর্ণ কবিতা রয়েছে যা শুনলে আপনার প্রাণটা জুড়িয়ে যাবে এবং স্বাধীনতার গুরুত্বকে উপলব্ধি করতে সক্ষম হবেন. আসুন কিছু কোভিদ গুরুত্বপূর্ণ স্বাধীনতার কবিতা এখান থেকে সংগ্রহ করুন.

সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড

  অ্যালেন গিন্সবার্গ

শত শত চোখ আকাশটা দেখে, শত শত শত মানুষের দল,

যশোর রোডের দুধারে বসত বাঁশের ছাউনি কাদামাটি জল

কাদামাটি মাখা মানুষের দল, গাদাগাদি করে আকাশটা দেখে,

আকাশে বসত মরা ইশ্বর, নালিশ জানাবে ওরা বল কাকে

ঘরহীন ওরা ঘুম নেই চোখে, যুদ্ধে ছিন্ন ঘর বাড়ী দেশ,

মাথার ভিতরে বোমারু বিমান, এই কালোরাত কবে হবে শেষ

শত শত মুখ হায় একাত্তর যশোর রোডযে কত কথা বলে, এত মরা মুখ আধমরা পায়ে পূর্ব বাংলা কোলকাতা চলে। সময় চলেছে রাজপথ ধরে যশোর রোডেতে মানুষ মিছিল, সেপ্টেম্বর হায় একাত্তর, গরুগাড়ী কাদা রাস্তা পিছিল লক্ষ মানুষ ভাত চেয়ে মরে, লক্ষ মানুষ শোকে ভেসে যায়, ঘরহীন ভাসে শত শত লোক লক্ষ জননী পাগলের প্রায়। রিফিউজি ঘরে খিদ পাওয়া শিশু, পেটগুলো সব ফুলে ফেঁপে ওঠে এইটুকু শিশু এতবড় চোখ দিশেহারা মা কারকাছে ছোটে। সেপ্টেম্বর হায় একাত্তর, এত এত শুধু মানুষের মুখ,    যুদ্ধ মৃত্যু তবুও স্বপ্ন ফসলের মাঠ ফেলে আসা সুখ। কারকাছে বলি ভাতরূটি কথা, কাকে বলি করো, করো করো ত্রান, কাকে বলি, ওগো মৃত্যু থামাও, মরে যাওয়া বুকে এনে দাও প্রান। কাঁদো কাঁদো তুমি মানুষের দল তোমার শরীর ক্ষত দিয়ে ঢাকা, জননীর কোলে আধপেটা শিশু একেমন বাঁচা, বেঁচে মরে থাকা। ছোটো ছোটো তুমি মানুষের দল, তোমার ঘরেও মৃত্যুর ছায়া,    গুলিতে ছিন্ন দেহ মন মাটি, ঘর ছেড়েছোতো মাটি মিছে মায়া। সেপ্টেম্বর হায় একাত্তর, ঘর ভেঙে গেছে যুদ্ধের ঝড়ে, যশোর রোডের দুধারে মানুষ এত এত লোক শুধু কেনো মরে। শত শত চোখ আকাশটা দেখে, শত শত শত শিশু মরে গেল, যশোর রোডের যুদ্ধ ক্ষেত্রে ছেঁড়া সংসার সব এলোমেলো কাদামাটি মাখা মানুষের দল, গাদাগাদি করে আকাশটা দেখে, আকাশে বসত মরা ইশ্বর, নালিশ জানাবে ওরা বল কাকে। ঘরহীন ওরা ঘুম নেই চোখে, যুদ্ধে ছিন্ন ঘর বাড়ী দেশ, মাথার ভিতরে বোমারু বিমান, এই কালোরাত কবে হবে শেষ। শত শত মুখ হায় একাত্তর যশোর রোডযে কত কথা বলে, এত মরা মুখ আধমরা পায়ে পূর্ব বাংলা কোলকাতা চলে, এত মরা মুখ আধমরা পায়ে পূর্ব বাংলা কোলকাতা চলে॥

তোমাকে পাওয়ার জন্যে, হে স্বাধীনতা

কবি শামসুর রাহমান

তোমাকে পাওয়ার জন্যে, হে স্বাধীনতা,

তোমাকে পাওয়ার জন্যে

আর কতবার ভাসতে হবে রক্তগঙ্গায় ?

আর কতবার দেখতে হবে খাণ্ডবদাহন ?

তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা,

সাকিনা বিবির কপাল ভাঙলো,

সিঁথির সিঁদুর গেল হরিদাসীর

তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা,

শহরের বুকে জলপাইয়ের রঙের ট্যাঙ্ক এলো

দানবের মত চিত্কার করতে করতে

তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা,

ছাত্রাবাস বস্তি উজাড় হলোরিকয়েললেস রাইফেল

আর মেশিনগান খই ফোটালো যত্রতত্র

তুমি আসবে ব’লে, ছাই হলো গ্রামের পর গ্রাম

তুমি আসবে ব’লে, বিধ্বস্ত পাড়ায় প্রভূর বাস্তুভিটার

ভগ্নস্তূপে দাঁড়িয়ে একটানা আর্তনাদ করলো একটা কুকুর

তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা,

অবুঝ শিশু হামাগুড়ি দিলো পিতামাতার লাশের উপর

তোমাকে পাওয়ার জন্যে, হে স্বাধীনতা, তোমাকে পাওয়ার জন্যে

আর কতবার ভাসতে হবে রক্তগঙ্গায় ?

আর কতবার দেখতে হবে খাণ্ডবদাহন ?

স্বাধীনতা, তোমার জন্যে এক থুত্থুরে বুড়ো

উদাস দাওয়ায় ব’সে আছেন – তাঁর চোখের নিচে অপরাহ্ণের

দুর্বল আলোর ঝিলিক, বাতাসে নড়ছে চুল

স্বাধীনতা, তোমার জন্যে

মোল্লাবাড়ির এক বিধবা দাঁড়িয়ে আছে

নড়বড়ে খুঁটি ধ’রে দগ্ধ ঘরের

স্বাধীনতা, তোমার জন্যে

হাড্ডিসার এক অনাথ কিশোরী শূন্য থালা হাতে

বসে আছে পথের ধারে

তোমার জন্যে,

সগীর আলী, শাহবাজপুরের সেই জোয়ান কৃষক,

কেষ্ট দাস, জেলেপাড়ার সবচেয়ে সাহসী লোকটা,

মতলব মিয়া, মেঘনা নদীর দক্ষ মাঝি,

গাজী গাজী ব’লে নৌকা চালায় উদ্দান ঝড়ে

রুস্তম শেখ, ঢাকার রিকশাওয়ালা, যার ফুসফুস

এখন পোকার দখলে

আর রাইফেল কাঁধে বনে জঙ্গলে ঘুড়ে বেড়ানো

সেই তেজী তরুণ যার পদভারে

একটি নতুন পৃথিবীর জন্ম হ’তে চলেছে —

সবাই অধীর প্রতীক্ষা করছে তোমার জন্যে, হে স্বাধীনতা

পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে জলন্ত

ঘোষণার ধ্বনি-প্রতিধ্বনি তুলে,

মতুন নিশান উড়িয়ে, দামামা বাজিয়ে দিগ্বিদিক

এই বাংলায়

তোমাকেই আসতে হবে, হে স্বাধীনতা

Leave a Reply

Your email address will not be published.

WC Captcha + 86 = 87

Back to top button
24e66b9c2a100907